শিক্ষা উদ্যোক্তাদের জন্য সফলতার হাতিয়ার CoachSys Coaching Management Software

প্রিয়জনের উপকার করুন, শেয়ার করুন-

কোচসিস (coachsys)মূলত একটি ওয়েব অ্যাপ যা তৈরি করা হয়েছে সব ধরনের একাডেমিক ও নন-একাডেমিক কোচিং সেন্টার বা ট্রেনিং সেন্টারে ডিজিটালাইজেশনের ছোঁয়া পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে। গ্রাহকের ধরন ও চাহিদার ওপর ভিত্তি করে এর রয়েছে দুটো ভার্সন – প্রিমিয়াম ও রেগুলার।

কোচসিস প্রিমিয়াম তৈরি হয়েছে ঘরে বসেই নিজের অনলাইন একাডেমি তৈরি ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য। যেকেউই তার বাসায় বসেই শুরু করতে পারেন তার অনলাইন শিক্ষা উদ্যোগ। কোচসিস সব ধরনের শিক্ষা কার্যক্রমের জন্য উন্মুক্ত। আপনার অনলাইন স্কুল/কলেজ, কোচিং বা ট্রেনিং সেন্টার, প্রাইভেট ব্যাচ যা-ই থাকুক না কেন কোচসিসে তা সামলাতে পারবেন নিশ্চিন্তে।

বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত থেকে সংযুক্ত হতে পারবেন আপনার শিক্ষার্থী এবং আপনার একাডেমির সব শিক্ষকেরাও। শিক্ষার্থীদের ভর্তি করানো থেকে শুরু করে, অনলাইনে ইন্টারেকটিভ লাইভ ক্লাস নেয়া যেখানে সরাসরি ছাত্র-শিক্ষক সবাই কথা বলতে পারবে, ক্লাস শুরুর সাথে সাথেই তাদের মোবাইলে এসএমএস যাওয়া, অনলাইন ক্লাসে যোগ দিলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে উপস্থিতি নিয়ে নেয়া, ব্যাচ বা ক্লাসভিত্তিক লেকচার শিট শেয়ার করা, লাইভ চ্যাটে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখা, শিক্ষার্থীদের ভর্তি ফি/ মাসিক ফি জেনারেট করা, শিক্ষকদের ক্লাসভিত্তিক বিল জেনারেট করা, নোটিশ দেয়া, বকেয়া থাকলে তার নোটিফিকেশন পাঠানো, অনিয়মিত শিক্ষার্থীদের একাউন্ট ডিএক্টিভের ব্যবস্থা, পরীক্ষার ফলাফল অনলাইনে এবং মোবাইল এসএমএসে পাঠানোর সুযোগ, প্রচারণার জন্য বাল্ক এসএমএস ক্যাম্পেইনের ব্যবস্থা – এত সবকিছুই সামাল দিতে কোচসিস প্রিমিয়াম একাই যথেষ্ট।

কোচসিস রেগুলার মূলত অফলাইনভিত্তিক ট্রেডিশনাল একাডেমির ব্যবস্থাপনার জন্য তৈরি করা। প্রিমিয়ামের প্রায় সব ফিচারই রেগুলারে আছে। শুধুমাত্র অনলাইনে লাইভ ক্লাস নেয়ার ফিচার এবং লাইভ ক্লাসে যোগ দিলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে উপস্থিতি নিয়ে নেয়ার ফিচারটি বাদে। কেননা, অফলাইন একাডেমির সাথে এই ফিচারগুলো যায় না। তবে, যেকোনো রেগুলার গ্রাহক যেকোনো সময়েই ইনস্টলেশন ফি প্রদান করে প্রিমিয়াম প্যাকেজে নিজেকে ট্রান্সফার করে পরিপূর্ণ অনলাইন একাডেমি হিসেবে নিজেদের তৈরির সুযোগ রাখেন।

কোচসিস-এর ডেভেলপমেন্ট একটি চলমান প্রক্রিয়া। আমাদের টিম প্রতিনিয়ত নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে একে আরো সমৃদ্ধ করার জন্য। আমরা নতুন রিলিজ করা ফিচারের জন্য গ্রাহকদের কাছ থেকে কোনো অর্থ দাবী করি না। একইসাথে সব গ্রাহকই সেই সব ফিচারের আপডেট তাদের ইনস্টেন্সে পেয়ে যান। এই ক্রমাগত আত্মোন্নয়নের পেছনে দেশের একেবারে প্রান্তিক পর্যায়ে ছড়িয়ে থাকা গ্রাহকেরাই আমাদের প্রেরণা। দেশের সব জেলা পেরিয়ে দ্রুত বিশ্বের অন্যান্য দেশেও ছড়িয়ে পড়বে কোচসিস, ভূমিকা রাখবে শিক্ষার সুবিস্তারে, সহায়তা করবে আরো অসংখ্য শিক্ষা উদ্যোক্তাদের – এটাই আমাদের চাওয়া।

কোচসিস-এর ফিচারের সুবিধা দেয়ার ক্ষেত্রে আমরা ছোট বা বড় কোনো বিভেদ রাখিনি। আমাদের বিশজনের ব্যাচ নিয়ে ক্লাস করানো শিক্ষক তার কোচসিস একাউন্টে যেসব ফিচার পাচ্ছেন, দুই হাজারের বেশি শিক্ষার্থী নিয়ে চলা একাডেমির কোচসিস একাউন্টেও একই ফিচার। রেগুলার ও প্রিমিয়ামের পার্থক্য রাখা হয়েছে প্রতিষ্ঠানের চাহিদার ওপর ভিত্তি করে, আর সাবস্ক্রিপশন ফি-র পার্থক্য রাখা হয়েছে মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যার ওপর ভিত্তি করে, সেটাই আমাদের যৌক্তিক মনে হয়েছে।

কোচসিসে ফ্রি ট্রায়াল দেয়ার সুযোগ আছে। ট্রায়াল দিয়েই সিদ্ধান্ত নিন, যোগাযোগ করুন আমাদের সাথে। কোচসিস-এর আওতায় না আসার একটাই কারণ থাকতে পারে, কোচসিস সম্বন্ধে না জানা। সেটা বলার সুযোগ যে এখন আর নেই!

কোচসিস এর অসাধারণ সব ফিচারঃ

 

স্টুডেন্ট পোর্টাল / Student Portal

ভর্তির সাথে সাথেই শিক্ষার্থীদের নিজস্ব একাউন্ট তৈরি হয়ে যাবে। সেই একাউন্টে লগইন করে নিজের ভর্তির তথ্য, ক্লাস শিডিউল, নোটিশ, উপস্থিতির রিপোর্ট, লেকচার শিট, পরীক্ষার ফলাফল, পরীক্ষার শিডিউল – দেখে নিতে পারবেন। দেখতে পাবেন তার কোর্স সম্পর্কিত বিলগুলো এবং সেগুলোর কোনোটার বকেয়া আছে কিনাসহ পুরো পেমেন্ট হিস্ট্রি। যেকোনো জিজ্ঞাসায় এডমিনদের সাথে সরাসরি লাইভ চ্যাটে কথা বলতে পারবেন যেকোনো সময়। একাডেমির ইনস্ট্যান্সটি কোচসিস প্রিমিয়াম হলে তার ড্যাশবোর্ড থেকেই যোগ দিতে পারবেন লাইভ ক্লাসে।

টিচার্স পোর্টাল / Teachers Portal

কোচসিসে (coachsys) -শিক্ষকদের জন্য একান্ত নিজস্ব টিচার্স পোর্টাল আছে। কোচসিস ব্যবহারকারী কোনো একাডেমির একজন শিক্ষক তার একাউন্টে লগইন করে টিচার্স পোর্টালে তার সম্পর্কিত সব তথ্য এক পলকে দেখে নিতে পারেন। তার কখন কোন ব্যাচের সাথে কী বিষয়ে ক্লাস আছে তার পূর্ণাঙ্গ ক্লাস শিডিউল দেখতে পান। তার একাডেমি কোচসিস প্রিমিয়াম গ্রাহক হলে সেই ক্লাস শিডিউল এর সময় অনুযায়ী তিনি অনলাইনেই লাইভ ইন্টারএকটিভ ক্লাস নিতে পারেন। লাইভ ক্লাসের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিয়ে নেয় কোচসিস। তবে, অফলাইন ক্লাসের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতির তথ্য এসাইনকৃত শিক্ষক নিজের একাউন্ট থেকেই নিতে পারেন।

প্রতিটি ক্লাসের বিপরীতে কী পরিমাণ অর্থ পাচ্ছেন সেটাও টিচার্স পোর্টাল থেকে দেখে নিতে পারেন একজন শিক্ষক। ক্লাসের বিল, ক্লাসের বাইরে্র যেকোনো কাজের জন্য তৈরি বিল, তার ভেতর কোনটা পুরো পরিশোধ হল বা কোনটা বকেয়া রয়ে গেল – এসবের বিস্তারিত দেখতে পারেন।

নোটিশবোর্ডে শিক্ষকদের জন্য কোনো নোটিশ থাকলে সেটাও দেখতে পারেন একজন শিক্ষক।

 

লাইভ ইন্টারএকটিভ ক্লাস / Live Inter-active Class

কোচসিস (coachsys)-এর ‘লাইভ ক্লাস’ ফিচার এর মাধ্যমে এখন আর ক্লাসরুমের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে না পাঠদান। বিশ্বের যেকোনো প্রান্তে থাকা যে কেউই আপনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী হওয়ার সুযোগ পাবে। ইন্টারএকটিভ ক্লাসগুলোতে শুধু দেখাই নয়, তারা কথাও বলতে পারবে। সাথে চলবে লাইভ চ্যাট। এক দিনে যতগুলো ইচ্ছে লাইভ ক্লাস নেয়া যাবে। লাইভ ক্লাসের সেশনে সময়ের কোনো লিমিটেশন নেই। একজন শিক্ষকের একটি লাইভ সেশনে একসাথে সর্বোচ্চ ৭০ জন শিক্ষার্থী অংশ নিতে পারবে। তবে আমরা সর্বোচ্চ ৫০ জনের কথা বলি, যাতে ক্লাসের গুণগত মানে ক্ষতি না হয়। শুধু তা-ই না, একইসাথে একাধিক শিক্ষকও একাধিক ক্লাস নিতে পারবেন। এখানেও কোনো লিমিটেশন নেই। নেই লিংক বা পাসওয়ার্ড শেয়ারের ঝামেলা।

ব্যাচভিত্তিক ক্লাস শিডিউল তৈরির সাথে সাথে লাইভ ক্লাসের সবকিছুই তৈরি হয়ে যাবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে। শিডিউলে উল্লেখিত সময়ের দশ মিনিট আগে লাইভ ক্লাস আইকন দেখা যাবে শিক্ষকের পোর্টালে। এর ফলে, বেঁধে দেয়া সময়ের আগে চাইলেও ক্লাস নেয়া যাবে না। আর ক্লাস শুরুর সাথে সাথেই সেই ব্যাচের সব শিক্ষার্থীর মোবাইলে ক্লাসের ব্যাপারে এসএমএস নোটিফিকেশন চলে যাবে। শিক্ষার্থীরা নিজেদের একাউন্টে লগইন করার পর ক্লাসে জয়েন করার বাটন দেখতে পাবে। এতে ক্লিক করলেই তাকে লাইভ ক্লাসে রিডিরেক্ট করা হবে। ক্লাসে জয়েন করার সাথে সাথে তাদের উপস্থিতিও স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিয়ে নিবে কোচসিস। যে উপস্থিতির রিপোর্ট শিক্ষক ও শিক্ষার্থী নিজেরা নিজেদের পোর্টালে যেকোনো সময় দেখে নিতে পারবেন।

লাইভ ক্লাস চলাকালীন সময়ে যেকোনো শিক্ষার্থীকে মিউট করে দিতে পারেন শিক্ষক। চাইলে সবাইকেই মিউট করে দিতে পারেন এক ক্লিকে। কিংবা যেকোনো একজনকে কথা বলার সুযোগ দিতে তাকে ছাড়া অন্য সবাইকে মিউট করে দিতে পারেন। এছাড়াও ক্লাস শুরুর আগে শিক্ষক প্রয়োজনবোধ করলে সবাইকে মিউট রেখে কিংবা সবার ক্যামেরা অফ রেখেই ক্লাস শুরু করতে পারেন। এতে করে ক্লাসে সংযুক্ত হওয়ার সময়েই সবাই মিউট অবস্থায় বা ক্যামেরা অফ অবস্থায় সংযুক্ত হবে। মিউট থাকার সময় কেউ কথা বলতে চাইলে হাত তোলার ফিচার আছে। তাতে কেউ হাত তুললে শিক্ষকের কাছে নোটিফিকেশন যাবে যে সে কিছু বলতে চায়। যদিও ক্লাস চলাকালীন লাইভ চ্যাটও চলমান থাকবে। এই লাইভ চ্যাটে আবার নির্দিষ্ট কারো সাথে প্রাইভেট চ্যাট করার সুযোগও আছে।

লাইভ ক্লাসে ভিডিওর পাশাপাশি স্ক্রিন শেয়ার করতে পারবেন শিক্ষক। যেকোনো প্রেজেন্টেশন বা ইলাস্ট্রেশন বা যেকোনো এপ্লিকেশনও সরাসরি দেখাতে পারবেন শিক্ষার্থীদের সামনে। শিক্ষার্থীরা তার শেয়ার করা স্ক্রিন দেখার পাশাপাশি তার কথাও শুনতে থাকবে। অনেকটা অফলাইনে প্রজেক্টরে ক্লাস নেয়ার মত করে ক্লাস নিতে পারবেন অনলাইনে।

ইন্টারনেট সংযোগ দুর্বল হলে শিক্ষক বা শিক্ষার্থী প্রয়োজনমত তাদের ব্যান্ডউইথ সেট করে নিতে পারবেন। লো ব্যান্ডউইথ, লো ডেফিনেশন, স্ট্যান্ডার্ড ডেফিনেশন, হাই ডেফিনেশন এই চারটি প্রকারভেদ দেয়া আছে। লো ব্যান্ডউইথ-এ শিক্ষার্থীর ক্যামেরা বন্ধ হয়ে যাবে, শুধুমাত্র কথা শুনতে ও বলতে পারবে। সে হিসেবে লো ডেফিনেশন দিয়েও কাজ চালানো সম্ভব। লো ডেফিনেশনে আমরা দেখেছি ৩০/৩২ কেবিপিএস ব্যান্ডউইথ খরচ হয়।

এক ঘণ্টা ক্লাস করলে এই হিসেবে একজন শিক্ষার্থীর যাবে ১১৫ থেকে ১২০ মেগাবাইট ডাটা। স্ট্যান্ডার্ড ডেফিনেশনে ৭০ কেবিপিএস ব্যান্ডউইথ খরচ হয়। এক ঘণ্টার ক্লাসে যাবে ২৫০ মেগাবাইট ডাটা।

 

ভর্তি প্রক্রিয়া ব্যবস্থাপনা / Admission Management

কোচসিস (coachsys)-আপনার ভর্তি কার্যক্রমকে করবে সহজতর। শুধু ভর্তি ফর্ম নাম্বার দিয়েই নির্দিষ্ট কোর্স এবং ব্যাচকে সিলেক্ট করে এরপর শিক্ষার্থীর তথ্য – যেমন – নাম, ফোন, ঠিকানা, অভিভাবকের নাম, অভিভাবকের ফোন দিয়েই আপনি তার ভর্তি কনফার্ম করতে পারবেন।

একই সাথে কয়েকটা কাজ হবে এখানে। শিক্ষার্থীর ভর্তি তো হবেই, সাথে সাথে তার একটা একাউন্ট হয়ে যাবে যে একাউন্টে লগইন করে সে তার সমস্ত তথ্য দেখতে পাবে। আর একইসাথে তার নামে তার কোর্সের ভর্তি ফি অনুযায়ী একটা বিলও তৈরি হয়ে যাবে, যেটা সে পরবর্তীতে একসাথে বা ধাপে ধাপে পরিশোধ করার সুযোগ পাবে।

এসএমএস ইভেন্ট একটিভ করা থাকলে তার কাছে ভর্তির নোটিফিকেশন যাবে। একইসাথে বিলের নোটিফিকেশনও এসএমএসে যাবে। এতোকিছু হয়ে যাবে মাত্র ১ মিনিটেরও কম সময়ে, আর তাও নিখুঁতভাবে। কারণ আপনাকে বিলের টাকার এমাউন্ট বসাতে হচ্ছে না। তাই ভুল হওয়ার সুযোগও থাকছে না।

পুরো কাজটাই চাইলেই মোবাইলেই করা সম্ভব। অর্থাৎ এমন না যে আপনাকে আলাদা কোনো পিসিতে ইনভেস্ট করার দরকার পড়ছে। শুধু তা-ই না, যদি আপনি চান পিসিতেই করবেন আর এটার একটা ভর্তি-তথ্যের প্রিন্ট অভিভাবক বা শিক্ষার্থীকে দিবেন। সেটাও দেয়ার সুযোগ আছে এখানে। অর্থাৎ আমরা সবার কথাই ভেবেছি।

কোর্স ভিত্তিক ব্যাচ / Batch Category

কোচসিসে কোর্স তৈরির কোনো সীমা নেই। একজন গ্রাহক যতগুলো ইচ্ছে কোর্স তৈরি করতে পারেন। সবগুলো কোর্সের অধীনেই এক বা একাধিক ব্যাচ তৈরি করার সুবিধা আছে কোচসিসে। শিক্ষার্থীরা সরাসরি সেসব ব্যাচেই ভর্তি হন। ব্যাচের উপর নির্ভর করে তাদের ভর্তি ফি, মাসিক ফি, ক্লাস শিডিউল, লেকচার শিট, নোটিশ, পরীক্ষার মার্ক প্রায় সবই দেয়া হয়ে থাকে।

ক্লাস শিডিউল / Class Schedule

কোচসিসে ব্যাচ অনুযায়ী ক্লাস শিডিউল তৈরি করা যায়। সেই শিডিউলে শিক্ষককে এসাইন করা যায়। ফলে সেই ব্যাচের শিক্ষার্থীরা এবং এসাইনকৃত শিক্ষক সকলেই নিজেদের ড্যাশবোর্ডে ক্লাস শিডিউলের পূর্ণ তালিকা ও সময় দেখতে পান। কোচসিস প্রিমিয়াম ইনস্ট্যান্স হলে শিক্ষকেরা তাদের ক্লাস শিডিউলের সাথে লাইভ ক্লাস নেয়ার আইকনটিও দেখতে পান এবং সেখানে ক্লিক করেই ক্লাসের সময় অনুযায়ী ক্লাস নিতে পারেন। যেহেতু যেকোনো একাডেমিতে একটি কোর্সের অধীনে সাধারণত একাধিক ব্যাচ থাকে এবং সে অনুযায়ী ক্লাস শিডিউলও ভিন্ন ভিন্ন হয়, তাই এটি একাডেমির প্ল্যানিং গুছিয়ে আনতে বেশ কাজে দেয়।

ই-উপস্থিতি / E-Attendence

কোচসিস (coachsys)- এর সাহায্যে কোনো ডিভাইসের সাহায্য ছাড়াই সরাসরি সফটওয়্যার থেকেই নেয়া যায় প্রতিটা ক্লাসের উপস্থিতি যা আবার সাথে সাথে অভিভাবকের কাছে মোবাইল এসএমএস এর মাধ্যমে পাঠানো যায়। উপস্থিতি নিতে পারেন এডমিন নিজেই কিংবা সেই ক্লাসে এসাইন করা শিক্ষক।

শুধু দৈনিক উপস্থিতিই নয়, মাসিক উপস্থিতির পূর্নাংগ রিপোর্টও এসএমএস-এ পাঠানোর সুযোগ আছে। আর শিক্ষার্থী বা অভিভাবক নিজের একাউন্টে লগইন করে যেকোনো সময়ের উপস্থিতির তথ্য দেখার সুযোগ তো আছেই। কোচসিস প্রিমিয়াম ইনস্ট্যান্স হলে লাইভ ক্লাসে শিক্ষার্থীরা অংশ নিলে তাদের উপস্থিতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিয়ে নিবে কোচসিস। আলাদা করে শিক্ষক বা শিক্ষার্থীর কিছু করতে হবে না।

লেকচার শিট শেয়ার / Lecture Sheet Share

কোচসিসে (coachsys)-লেকচার শিটসহ যেকোনো কোর্স ম্যাটেরিয়াল শেয়ার করা যাবে শিক্ষার্থীদের সাথে। শেয়ার করার সময় তাদের কোর্স এবং ব্যাচ সিলেক্ট করে দেয়া যাবে, এতে করে নির্দিষ্ট ব্যাচের শিক্ষার্থী ছাড়া অন্য কেউ সেই ম্যাটেরিয়াল দেখতে পাবে না। আবার কোনো কোর্স বা ব্যাচ সিলেক্ট না করে সেটা সব শিক্ষার্থীর জন্য উন্মুক্ত করেও দেয়া যাবে। ওয়ার্ড বা ইমেজ বা পিডিএফ ফরম্যাটে আপ করে রাখা যাবে যেকোনো ফাইল। আর সে অনুযায়ী শিক্ষার্থীরা তাদের একাউন্টে লগইন করে পড়ার কিংবা ডাউনলোড করে নেয়ার সুযোগ পাবে।

নোটিশ / Notice

কোচসিসে (coachsys)- যেকোনো নোটিশ দিলে তা চলে যাবে যার যার নিজস্ব কোচসিস একাউন্টে এবং মোবাইলে এসএমএস হিসেবে। নোটিশ দেয়ার সময় সিলেক্ট করে দেয়া যায় এটা শিক্ষকদের জন্য দেয়া নোটিশ নাকি শিক্ষার্থীদের জন্য দেয়া। চাইলে দেয়া যাবে নির্দিষ্ট কোনো কোর্সের নির্দিষ্ট কোনো ব্যাচে কিংবা সবাইকে। আর এসএমএস নোটিফিকেশনে এই ইভেন্ট এনাবল করা থাকলে অনলাইনের পাশাপাশি চলে যাবে সবার মোবাইলেও।

স্টুডেন্ট ফি ম্যানেজমেন্ট / Student Fee Management

কোচসিসে (coachsys)-স্টুডেন্ট ফি ম্যানেজমেন্ট সর্বোচ্চ সহজ করা হয়েছে। যেকোনো শিক্ষার্থী ভর্তির সাথে সাথেই তার ভর্তি ফি এর একটি বিল স্বয়ংক্রিয়ভাবে তৈরি হয়ে যায়। একইভাবে যেসব কোর্সে মাসিকভিত্তিতে অর্থ নেয়া হয় সেসব কোর্সের কোনো ব্যাচের সব শিক্ষার্থীদের মাসিক ফি এর বিল এক ক্লিকেই তৈরি করা যায়। এই বিলগুলো শিক্ষার্থীরা তাদের নিজ নিজ একাউন্টে লগইন করে দেখতে পারেন। আর এসএমএস নোটিফিকেশন এনাবল করা থাকলে তাদের মোবাইলেও সাথে সাথে এসএমএস আকারে চলে যায়।

শিক্ষার্থীরা চাইলে একবারে কিংবা ধাপে ধাপে তাদের বিল পরিশোধ করতে পারেন। একজন শিক্ষার্থী বিল পরিশোধ করার সাথে সাথে তার নিজের পোর্টালে আপডেটেড হয়ে যায়, এসএমএস নোটিফিকেশন এনাবল করা থাকলে চলে যায় মোবাইলে। ফলে অর্থ লেনদেনে আসে সম্পূর্ণ স্বচ্ছতা।

বকেয়া বিলের জন্য শিক্ষার্থীদের মৌখিক তাগাদা দেয়ার প্রয়োজন পড়ে না কোচসিসের গ্রাহকদের। ব্যাচভিত্তিক যেসব শিক্ষার্থীর বকেয়া আছে তাদের বকেয়ার ব্যাপারে জানিয়ে দেয়ার জন্য আছে ডিউ নোটিফিকেশন এসএমএস পাঠানোর ব্যবস্থা।

শিক্ষকদের বিল তৈরি ও পরিশোধ / Teachers Honouorium

শিক্ষকদের ক্লাস এসাইন করার সময়েই বিল স্বয়ংক্রিয়ভাবে তৈরি হয়ে যায় – এমন ব্যবস্থাই আছে কোচসিসে। এর ফলে কোচিংয়ের শিক্ষকদের বিল তৈরি ও পেমেন্টের ব্যাপারে এডমিনকে আর জটিলতায় পড়তে হয় না। এছাড়াও চাইলে ক্লাসের বাইরে অন্য বিলও তৈরি করার সুযোগ আছে। এডমিন যেকোনো শিক্ষককে বিল দেওয়ার আগে কোনটি তার কোন ক্লাসের বিল আর কোনটি তার ভিন্ন বিল সেসবের পূর্ণ তথ্য দেখতে পারেন এবং সেই অনুযায়ী শিক্ষককে অর্থ পরিশোধ করতে পারেন। শিক্ষকেরা তাদের নিজের একাউন্টে লগইন করে তাদের বিলগুলো দেখে নিতে পারেন। সেসব বিলের কোনটি পাওনা আছে, কতটুকু পাওনা আছে, কোনটি পুরো পরিশোধ হয়ে গেছে সেসবও দেখার সুযোগ আছে কোচসিসে।

কর্মচারীদের বিল তৈরি ও পরিশোধ / Stuff Payment

একাডেমিতে কাজ করা কর্মচারিদের প্রত্যেকের একাউন্টের আওতায় আলাদা আলাদা বিল তৈরির সুযোগ আছে। পরবর্তীতে সেই বিলের আওতায় যেকোনো সময় বিলের অর্থ পরিশোধের ব্যবস্থা আছে। কোনো নির্দিষ্ট কর্মচারির সমস্ত বিলগুলো এক পলকে দেখার সুযোগ তো থাকছেই।

ব্যয় ব্যবস্থাপনা / Cost Management

প্রয়োজনমত একাধিক ব্যয়ের খাত তৈরি করা যায় কোচসিসে। সেই সব খাতের আওতায় বিল তৈরি করা যায়। এর বাইরে শিক্ষক এবং কর্মচারিদের জন্য বিল তৈরির বা ব্যয়ের হিসাব রাখার সুযোগ তো আছেই। স্টক ইনভেন্টরির আওতায় নানা পণ্য কেনার বিষয়টিও এই ব্যয় ব্যবস্থাপনার সাথে সংযুক্ত।

এসএমএস নোটিফিকেশন / SMS Notification

কোচসিসের প্রায় সব ইভেন্টের সাথে ইন্টিগ্রেট করা আছে এসএমএস। অনলাইনে লাইভ ক্লাস শুরু হওয়ার সাথে সাথে এসএমএস চলে যাওয়ার মত ফিচার থেকে শুরু করে শিক্ষার্থীদের ভর্তি, পেমেন্ট, পরীক্ষার মার্ক কিংবা নোটিশেও চলে যাবে এসএমএস। শুধু তা-ই নয়, চাইলে সেই এসএমএসগুলো নিজেদের মত করে কাস্টোমাইজ করে নিতে পারেন এডমিন।

কোচসিসের প্রতিটি গ্রাহকের জন্য আছে নিজস্ব প্রো এসএমএস একাউন্ট। এই একাউন্টে কোচসিস থেকেই লগইন করে দেখে নিতে পারেন এসএমএস এর বিস্তারিত রিপোর্ট। কখন কার কাছে কোন এসএমএস গেলো। ডেলিভারি হল কিনা, না হলে কেন হল না, তার সম্পূর্ণ তথ্য দেখতে পাবেন প্রো এসএমএস একাউন্টে। উল্লেখ্য, এসএমএস এর চার্জ কোচসিসের সাবস্ক্রিপশন ফি এর সাথে সংযুক্ত নয়। এর জন্য প্রো এসএমএস এর নির্ধারিত প্যাকেজ অনুযায়ী চার্জ প্রযোজ্য।

এসএমএস মার্কেটিং / SMS Marketing

কোচসিসের গ্রাহকদের প্রচারণার সুবিধার্থে কোচসিস এর প্যানেল থেকেই সরাসরি বাল্ক এসএমএস মার্কেটিং করার সুযোগ আছে। বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে এখানে টার্গেট ক্লায়েন্টের ফোন নাম্বার ও নাম এন্ট্রি করা যায় যাতে করে এসএমএস মার্কেটিং এর সময় সেই নির্দিষ্ট ক্যাটাগরির শিক্ষার্থীর কাছেই এসএমএস পাঠানো যায়।

তবে সবচেয়ে ইউনিক ফিচার হল, এসএমএস পাঠানোর সময়েই ক্লায়েন্টের নাম মেনশন করার সুযোগ। এসএমএস লেখার সময় শর্টকোড ব্যবহার করে এসএমএস পাঠালে যেই ফোন নাম্বার যে নামে এন্ট্রি করা হয়েছিলো তার কাছে সেই নামের সম্বোধনেই এসএমএস চলে যায়। আলাদা করে লেখার প্রয়োজন পড়ে না। আর এসএমএস-এ ক্লায়েন্টের নাম উল্লেখ থাকায় এটা মার্কেটিং-এ বেশ ভাল প্রভাব ফেলে।

এর পাশাপাশি ক্লায়েন্টের ফোন নাম্বার এন্ট্রির সময় যেহেতু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই একসাথে অনেকগুলো নাম্বার এন্ট্রি করা হয়, তাই সিংগেল এন্ট্রির পাশাপাশি এক্সেল ফাইল আপলোড করে বাল্ক এন্ট্রির সুবিধাও আছে।

কোচসিসের প্রতিটি গ্রাহকের জন্য আছে নিজস্ব প্রো এসএমএস একাউন্ট। এই একাউন্টে কোচসিস থেকেই লগইন করে দেখে নিতে পারেন এসএমএস এর বিস্তারিত রিপোর্ট। কখন কার কাছে কোন এসএমএস গেলো। ডেলিভারি হল কিনা, না হলে কেন হল না, তার সম্পূর্ণ তথ্য দেখতে পাবেন প্রো এসএমএস একাউন্টে। উল্লেখ্য, এসএমএস এর চার্জ কোচসিসের সাবস্ক্রিপশন ফি এর সাথে সংযুক্ত নয়। এর জন্য প্রো এসএমএস এর নির্ধারিত প্যাকেজ অনুযায়ী চার্জ প্রযোজ্য।

 

পরীক্ষার ফলাফল / Exam Result

কোন পরীক্ষায় কে কত পেলো সেটা প্রত্যেকের একাউন্টে চলে যাবে মুহূর্তেই। শিক্ষার্থীরা প্রত্যেকেই যার যার ফলাফল দেখতে পাবে। আর এসএমএস নোটিফিকেশনে এই ইভেন্ট এনাবল তো কথাই নেই। চলে যাবে যার যার মোবাইল নাম্বারেও। সেখানে শিক্ষার্থীর নিজের মার্ক, সর্বোচ্চ মার্ক, গড় মার্ক, তার মেধাতালিকায় অবস্থানের উল্লেখও থাকবে।

শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার তারিখ কোচসিসে এন্ট্রি করার পর থেকেই তারা তাদের পোর্টালে একে দেখতে পাবে আপকামিং এক্সাম হিসেবে। মার্ক দেয়ার কাজটা একেবারে সহজতর। শুধুমাত্র মার্ক এন্ট্রি করলেই কোচসিস বাকি সব কাজ করে নিবে। মেধাতালিকা তৈরি করা, সর্বোচ্চ মার্ক খুঁজে নেয়া, গড় মার্ক বের করা – সব কোচসিসই করবে।

এখানেই শেষ নয়। মাসিক, ত্রৈমাসিক বা অন্য যেকোনো সময়ের ভিত্তিতে কিংবা নির্দিষ্ট কোনো গুচ্ছ মডেল টেস্টে পুরো ব্যাচের সব পরীক্ষার সম্মিলিত ফলাফল ও সেই অনুযায়ী মেধাতালিকাও স্বয়ংক্রিয়ভাবে তৈরি করে দেয় কোচসিস। সুযোগ আছে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর জন্য ভিন্ন ভিন্ন রেজাল্ট কার্ড/ রিপোর্ট কার্ড প্রিন্ট করে নেয়ার। একাডেমির লোগো ও ঠিকানা সংবলিত যে রিপোর্ট কার্ডে থাকবে সেই সময়ে বা সেই গুচ্ছ মডেল টেস্টে দেয়া শিক্ষার্থীর নিজের সব পরীক্ষার মার্ক এবং সবগুলো পরীক্ষা মিলিয়ে সম্মিলিত মেধায় তার ব্যাচে নিজের অবস্থান।

স্টক ইনভেন্টরি / Stock Inventory

প্রতিষ্ঠানের ব্যবহার্য জিনিসপত্র থেকে শুরু করে শিক্ষার্থীদের জন্য দেয়া উপহার সামগ্রী সব কিছুরই স্টক রাখা যাবে। দেখা যাবে কখন কত টাকায় কত পরিমাণ আনা হয়েছিলো, কবে কতটুকু ব্যবহার করা হয়েছিলো, বর্তমান পরিমাণ – সবকিছুই।

Source: https://coachsys.app/

It is a complete package for Successful Entrepreneur.


প্রিয়জনের উপকার করুন, শেয়ার করুন-

1 thought on “শিক্ষা উদ্যোক্তাদের জন্য সফলতার হাতিয়ার CoachSys Coaching Management Software”

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top