হ্যান্ড স্যানিটাইজারঃ সঠিক ব্যবহার জানলে,তবেই লাভ

www.hellodoctorctg.com
আপনার চেম্বার/হাসপাতাল/মেডিকেল প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন

(চট্টগ্রামের প্রতিটি মানুষের কাছে পৌছে যাক আপনার সেবার বার্তা)

প্রিয়জনের উপকার করুন, শেয়ার করুন-

হ্যান্ড স্যানিটাইজার বর্তমানে বহুল প্রচলিত একটি নাম। করোনা ভাইরাস আসার পরে আমরা অনেকেই নিয়মিত করছি এবং করা উচিত।হ্যান্ড স্যানিটাইজার আসলে নতুন নয়,বাংলাদেশ চিকিৎসা ব্যবস্থায়জড়িত প্রফেশনালরা বহি আগে থেকেই ব্যবহার করছে।আমরা যারা নন-মেডিকেলরা আছি বরং আমরাই সচেতন ছিলাম না।

এটি বিভিন্ম প্রকারে থাকতে পারে যেমনঃ তরল,জেল,ফোম ইত্যাদি।স্যানিটাইজার আসলে বর্ণহীন ও ঝাঁঝালো ,দেখতে সুন্দর করার জন্য এতে কালার যুক্ত করা হয়।

হ্যান্ড স্যানিটাইজারের কাজ কি?

এটি দ্বারা জীবাণুমুক্ত করা হয়।মানুষের শরীর থেকে শুরু করে ধাতব বস্তু পর্যন্ত এটি দ্বারা জীবাণুমুক্ত হয়ে থাকে।সব ভাইরাস কিন্তু স্যানিটাইজার দিয়ে মরে না যেমনঃ Norvovirus,Clostridium difficile ইত্যাদি।

কি দিয়ে তৈরী ?

এটি মূলত এলকোহল,ইথাইল এলকোহল ও আইসোপ্রোফাইল এলকোহল দিয়ে তৈরী।স্যানিটাইজারে সর্বনিম্ন ৬০% এলকোহল থাকতে হবে তবে ৯০% থাকলে সবচেয়ে ভালো।

সর্তকতাঃ

# স্যানিটাইজার পরিস্কারক নয়,এটি শুধু জীবাণুমুক্ত করে।

# স্যানিটাইজার প্রথমে হাতের তালুতে নিতে হবে,তারপর সাবধানে দুই হাত পরস্পরের সাথল ঘষতে হবে যাতে দুই হাতের সব জায়গায় পৌছায়।

# হাতের স্যানিটাইজার না শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

# হাতে স্যানিটাইজার নিয়ে আগুনের কাছে যাওয়া যাবে না।এটি খুবই দাহ্য।

# স্যানিটাইজারের সাথে স্যাবলন মেশানো যাবে না।এতে লাভের পরিবর্তে ক্ষতি হয়ে যাবে।

# স্যানিটাইজার উদ্বায়ী।খোলা থাকলে উড়ে যাবে।

# স্যানিটাইজার চোখে পড়লে বা গিলে ফেললে সাথে সাথে পানি ব্যবহার করতে হবে এবং ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হবে।


প্রিয়জনের উপকার করুন, শেয়ার করুন-

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Don`t copy text!
Scroll to Top